রসগোল্লা বানানোর পদ্ধতি

বাঙালি যেখানে, রসগোল্লা সেখানে। শুধু বাঙালি কেনো অবাঙ্গালিরাও পুরোপুরি এই মিষ্টান্নর ফ্যান বলা ্যায়।  অনেকেই অনেক রকম মিষ্টি হয়তো খুবই ভালোবাসেন, কিন্তু তা হলেও এই রসগোল্লার প্রতি যেন আমাদের সবারই একটু বেশী আবেগ, বেশী ভালোবাসা। অনেক মিষ্টি বা খাবারের মধ্যে এর দিকে আমাদের নজর যায় যেন একটু বেশী। সামনে একবাটি নরম তুলতুলে রসগোল্লা থাকলে আমাদের মতো মিষ্টি প্রেমী বাঙালিদের আর কে পায়। তাই চলুন এবার একটু জেনে নেওয়া যাক এই রসগোল্লার রেসিপি।

প্রয়োজনীয় উপকরণ

প্রণালী​

প্রথম ভাগ

প্রথমে দুধটিকে একটি বড় পাত্রে নিয়ে ছানা কেটে নিতে হবে। দুধ কে আগুনে বসিয়ে তার মধ্যে লেবু বা ভিনিগার ব্যাবহার করে আমরা ছানা কেটে নেব।  

দ্বিতীয় ভাগ

ছানা থেকে ভালো করে জল ঝরিয়ে নিতে হবে, এবং এটি দুই ঘণ্টা রেখে দিতে হবে।

তৃতীয় ভাগ

ঠিক দুই ঘন্টা বাদে ছানাটিকে একটি প্লেটে নিয়ে ভালো করে হাত দিয়ে মেখে নিতে হবে দশ থেকে কুড়ি মিনিট পর্যন্ত, যতক্ষণ না মোলায়েম হচ্ছে। এরপর এর মধ্যে দুই চামচ ময়দা দিয়ে ভালো করে মেখে নিতে হবে কারণ ময়দা ব্যাবহারের ফলে রসগোল্লা ভেঙ্গে যায় না। 

চতুর্থ ভাগ

এবার ছানার ডো থেকে হাতের সাহায্যে ছোট ছোট বল বানিয়ে নেব।

পঞ্চম ভাগ

এবার এক কাপ চিনির সাথে চার কাপ জল মিশিয়ে নিয়ে একটি সিরা তৈরী করব। তার মধ্যে দিয়ে দেব চারটি ভেঙ্গে রাখা এলাচ। এবার ছানার বল গুলি একে একে চিনির সিরায় দিতে থাকবো। পাঁচ মিনিটের জন্য বল গুলিকে হাই ফ্লেমে ফুটতে দিতে হবে, মনে রাখবেন এই পাঁচ মিনিট কোন ঢাকা দেওয়া যাবে না। পাঁচ মিনিট পর ঢাকা দিয়ে হাই ফ্লেমে একই ভাবে রেখে দিতে হবে। এবার শেষ পাঁচ মিনিট লো ফ্লেমে ঢাকা দিয়ে ফুটিয়ে নিতে হবে। ব্যাস, তৈরী আপনার রসগোল্লা।

ঠান্ডা হয়ে গেলে প্লেটে সাজিয়ে নিয়ে এবার অমৃতের স্বাদ উপভোগ করুন। আহা! বাড়ির বানানো রসগোল্লার সাথে কোন কিছুর যেন তুলনাই হয় না। হালকা গরম ও নরম রসগোল্লার স্বাদ যেন স্বর্গ।

তবে আর দেরী কিসের ? বাড়িতেই বানিয়ে ফেলুন রসগোল্লা।

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

two × 5 =

Pin It on Pinterest

Share This